লং কোভিড কী, কেন হয়, কী চিকিৎসা?

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কয়েক মাসের মধ্যেই ব্যাপারটা ব্রিটেনের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা খেয়াল করেছিলেন।

প্রথম দিকে বলা হয়েছিল, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ফলে শতকরা ৯০ জনের ক্ষেত্রেই সংক্ষিপ্ত এবং মৃদু অসুস্থতা দেখা দেয়, – জ্বর, কাশি, স্বাদ -গন্ধ না-পাওয়া ইত্যাদি – যা সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই সেরে যায়।

বলা হয়েছিল, শুধুমাত্র যাদের ওজন বেশি, বা যাদের ডায়াবেটিস, অ্যাজমা, হৃদরোগ ইত্যাদির মতো কোন স্বাস্থ্য সমস্যা আগে থেকেই আছে – তাদের জন্যই এটি বিপদ বা মৃত্যু-ঝুঁকির কারণ।

কিন্তু কিছুকাল বাদেই দেখা গেল – করোনাভাইরাস সংক্রমিতদের অনেকের জ্বর-কাশির মত উপসর্গগুলো সেরে গেলেও তারা পুরোপুরি সুস্থ হতে পারছেন না।

দেখা গেল, তাদের ফুসফুসের গুরুতর ক্ষতি হয়ে গেছে, অবসন্নতা ও বুক ধড়ফড়ানি দেখা দিচ্ছে, স্মৃতিশক্তি কমে গেছে, অনেকে এতটাই দুর্বল হয়ে পড়েছেন যে হাঁটাচলা পর্যন্ত করতে পারছেন না – স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরত আসতে তাদের মাসের পর মাস সময় লাগছে, কাউকে কাউকে ফিজিওথেরাপি নিতে হচ্ছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

Pin It on Pinterest

Share This
Scroll to Top