যেকোন সময় গ্রেফতার তাহসান খান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়া

ই-কমার্স কোম্পানি ইভ্যালির সাথে সম্পৃক্ত থেকে প্রতারণার অভিযোগে বাংলাদেশের বিনোদন জগতের সুপরিচিত বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার পর এ ব্যাপারে তদন্ত শুরু হয়েছে।

ওই মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন গায়ক ও অভিনেতা তাহসান খান, অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা এবং অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। তারা ছাড়াও এ মামলায় আরও ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশের রমনা জোনের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছে, প্রমাণ সাপেক্ষে অভিযুক্তরা যেকোন সময় গ্রেফতার হতে পারেন।

ঢাকার একটি আদালতে মামলাটি দায়ের করেন সাদ স্যাম রহমান নামে এক ব্যক্তি। পরে আদালত তদন্তের জন্য বিষয়টি ধানমন্ডি থানায় পাঠিয়ে দেয়।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে যে তাহসান, মিথিলা এবং শবনম ফারিয়া ইভ্যালির সাথে বিভিন্নভাবে সংশ্লিষ্ট ছিলেন, এবং বাদী ওই কোম্পানির মাধ্যমে প্রতারিত হয়েছেন।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, এই মামলার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

এদিকে পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুল হাসান বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযুক্তদের যে কোন সময় আটক করা হতে পারে।

তারা “তদন্ত চলার সময়ও আটক হতে পারেন, আবার প্রমাণ সাপেক্ষে তদন্তের পরেও আটক হতে পারেন,” বলেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

ধানমন্ডি থানার পুলিশ জানিয়েছে, প্রতারণামূলক ভাবে টাকা আত্মসাতের জন্য অভিযুক্তরা ইভ্যালিকে সহায়তা করেছেন এমন অভিযোগ মামলায় আনা হয়েছে।

এজাহারের বরাত দিয়ে পুলিশ আরও জানিয়েছে, অভিযুক্তদের বিভিন্ন কথা এবং প্রমোশনাল কর্মকাণ্ডের কারণে বাদী ইভ্যালিতে বিনিয়োগ করেছেন এবং প্রতারিত হয়েছেন।

মামলায় অন্য অভিযুক্তরা হলেন ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রাসেল, তার স্ত্রী ও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরীন, প্রতিষ্ঠানটির সাবেক প্রধান বিপনন কর্মকর্তা আরিফ আর হোসাইন, মোহাম্মদ আবু তাইশ, আকাশ ও তাহের।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

Pin It on Pinterest

Share This
Scroll to Top